চলচ্চিত্রে শিশুশিল্পী হিসেবেই তুমুল জনপ্রিয় প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। তিনবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।

এবার তার যাত্রা শুরু হতে যাচ্ছে নায়িকা হিসেবে। তবে একটি কিংবা দুইটি নয়, একসঙ্গে একই প্রযোজনা সংস্থার পাঁচ সিনেমায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন তিনি।

আগামী সেপ্টেম্বর থেকে সিনেমাগুলোর শুটিং ধারাবাহিকভাবে শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দীঘি। পাঁচটি সিনেমার দুইটি পরিচালনা করবেন শামীম আহমেদ রনি। তার একটি সিনেমার নাম ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’। অন্য আরেকটি মালেক আফসারীর ‘ধামাকা’। নাম ঠিক না হওয়া একটি করে সিনেমা করবেন কাজী হায়াৎ ও শাহীন সুমন।

দীঘি বাংলানিউজকে বলেন, দুইটি সিনেমা আগেই চূড়ান্ত ছিল। এরপর আরো তিনটি সিনেমা চূড়ান্ত হয়েছে। একসঙ্গে ৫ সিনেমায় সুযোগ পাবো সেটা আগে ভাবিনি। সেজন্য আমি খুব খুশি। আমার মতো শিশুশিল্পী থেকে একসঙ্গে পাঁচটি সিনেমায় কাজের সুযোগ এর আগে কেউ পেয়েছেন কিনা সেটা জানা নেই। এখন সিনেমাগুলোর জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছি। সবগুলোতে ভালো করার চেষ্টা করবো।

শাপলা মিডিয়ার ব্যানারে এই পাঁচ সিনেমা প্রযোজনা করছেন সেলিম খান। সিনেমাগুলোতে দীঘির নায়ক হচ্ছেন প্রযোজকের ছেলে শান্ত খান।

শুরুতে একটি মোবাইল অপারেটরের বিজ্ঞাপনে দুর্দান্ত অভিনয় করে সাড়া ফেলে ছোট্ট দীঘি। এরপর বড় পর্দায় ডাক পেয়ে শিশুশিল্পী হিসেবে দীঘি অভিনয় করেছেন- ‘চাচ্চু’, ‘দাদী মা’, ‘পাঁচ টাকার প্রেম’সহ মোট ৩৮টি সিনেমায়। চলতি বছর বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকেও অভিনয়ের জন্য তাকে চূড়ান্ত করা হয়।

এদিকে ২০১৯ সালে উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘প্রেম চোর’ সিনেমার মধ্যে দিয়ে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে শান্ত খানের। কলকাতার শ্রাবন্তির সঙ্গে এরই মধ্যে ‘বিক্ষোভ’ নামের আরেকটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন তিনি।