‘এজ ইজ জাস্ট আ নাম্বার’ এই কথা তিনি তাঁর শক্তিশালী অভিনয় দিয়ে প্রমাণ করেছেন বারংবার। আর তাই আজ বলিউড ডিভা রানী মুখার্জির ৪৩ তম জন্মদিনে অভিনেত্রী তার ভক্তদের জন্য নিয়ে এলেন বড় চমক। কলকাতা 24×7

২৫ বছর আগে এই মায়া দুনিয়ার বাণিজ্যনগরীতে তাঁর যাত্রা শুরু। তাই শুধু জন্মদিন নয়, বলিউডে পা রাখার রজত জয়ন্তীও পালন করছেন অভিনেত্রী। খুব ছোট বয়সেই বাবা রাম মুখার্জির ছবি ‘বিয়ের ফুল’-এ প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এর বিপরীতে অভিনয় দিয়ে তার ক্যারিয়ার শুরু। কিন্তু রানী মুখার্জি অভিনীত প্রথম যে দুটি ছবি বক্স অফিসে চূড়ান্ত সাফল্য এনে দেয়, তা হল ‘গুলাম’ এবং ‘কুছ কুছ হোতা হে’।

তারপর যশরাজ ফিল্মসের ব্যানারে সাথিয়া, ভির-জারা, চালতে চালতে, কাভি আলবিদা না কেহেনা ।এই লিস্ট শেষ হওয়ার নয়। তবে যে ছবি গুলোতে রানী মুখার্জি বিশেষভাবে দর্শকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তা হল ব্ল্যাক,পহেলি,নো ওয়ান কিল্ল্ড জেসিকা,মর্দনি,হিচ্কি।

এই মুহুর্তে বলিউড থ্রিলার অ্যাকশন জগতে তিনিই যেন প্রথম চয়েস। সামনেই থ্রিলার ড্রামা ছবি Mrs Chatterjee vs Norway-য়েতে কাজ করছেন অভিনেত্রী। ছবির পরিচালক অসীমা চিব্বার। প্রযোজনা করছেন নিখিল আডবাণী, মধু ভজয়ানী,মনীষা আডবাণী।একটি সত্য ঘটনা অবলম্বনেই তৈরী Mrs Chatterjee vs Norwayর গল্প। ঘটনা ২০১১ সালের। ভারতীয় দম্পতির এক সন্তানকে নিয়ে এই ছবিটি। যেখানে মূল চরিত্রে থাকবে রানি মুখার্জি।

নতুন ছবির কথা বলতে গিয়ে, রানি বলেছেন, নতুন ছবি ঘোষণা করে জন্মদিন উদযাপন করা এবং ইন্ডাস্ট্রিতে ২৫ বছর চিহ্নিত করার চেয়ে ভাল আর কিছু হতে পারে না। তিনি জনিয়েছেন, সিনেমায় তাঁর ২৫ বছর। কেরিয়ারের একটি বিশেষ এবং উল্লেখযোগ্য ছবির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। তাঁর কেরিয়ার শুরুর ছবি ‘রাজা কি আয়েগি বারাত’ ছবি একটি নারীকেন্দ্রিক চলচ্চিত্র এবং কাকতালীয়ভাবে তাঁর ২৫ তম বছরে, এমন একটি চলচ্চিত্রের ঘোষণা তিনি করলেন যা সমস্ত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে লড়াই এবং প্রচি ক্ষেত্রে জুঝতে থাকা একজন মহিলাকে কেন্দ্র করে তৈরী।

জন্মদিনের আগের দিন নিজের ইনস্টাগ্রাম থেকে একটি লাইফ করে রানী মুখার্জি কথা বললেন তার ভক্তদের সাথে যেখানে তিনি জানালেন তার পাঁচ বছরের সন্তান আদিরার যত্ন নিতে তিনি আপাতত ব্যস্ত। এছাড়া এই আলাপচারিতায় তিনি এও বলেন বলিউডে কাজ করাটা আদৌ শক্ত কিনা তা নিয়ে।

অভিনেত্রী জানান, একজন সুপরিচিত স্টার হয়ে যাওয়ার পর থেকেই দর্শকদের অভিনেতা এবং অভিনেত্রী থেকে প্রচুর এক্সপেক্টেশন তৈরী হয়। একজন অভিনেতা অভিনেত্রীর বিভিন্ন ধরনের কন্ডিশনে কাজ করার মানসিকতা থাকতে হয়। পর্দায় যা অত্যন্ত সুন্দর এবং গ্ল্যামারাস লাগে স্পেশালি শুটিং এর লোকেশন এর জন্য তার জন্য প্রচুর পরিশ্রম করতে হয় গোটা টিমকে । তাই যশ খ্যাতি প্রতিপত্তি সবই আসে যখন দর্শক একজন অভিনেতা অভিনেত্রীকে ভালোবাসে।