পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বাঁ পায়ের গোড়ালির হাড়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছেন। পায়ের পাতা, ডান হাত, গলা এবং ডান কাঁধেও চোট পেয়েছেন তিনি। এর আগে বাঙুর হাসপাতালে এমআরআই করে ফের এসএসকেএম হাসপাতালে আনা হয় মমতাকে। আরটিভি।

পরে এক মেডিকেল বুলেটিনে এসএসকেএম হাসপাতালের মহাপরিচালক ডা. মণিময় ব্যানার্জি জানান, মমতার পায়ে প্লাস্টার করা হয়েছে। আপাতত তাকে ৪৮ ঘণ্টার জন্য পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ফের মমতার সিটি স্ক্যান হওয়ার কথা রয়েছে।

নন্দীগ্রামে বুধবার পড়ে গিয়ে আঘাত পাওয়ার পর মমতাকে গ্রিন করিডোর করে নিয়ে আসা হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। সেখানে তাকে উডবার্ন ওয়ার্ডের সাড়ে ১২ নম্বর কেবিনে ভর্তি করানো হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা একাধিক পরীক্ষার পর সিদ্ধান্ত হয়, তার এমআরআই করানো হবে।

এজন্য মমতাকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে নিয়ে যাওয়া হয় বাঙুর ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেসে। সেখানে এমআরআই করার পর রাত ১টা নাগাদ ফের এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে আনা হয়।

ডা. মণিময় বলেছেন, প্রাথমিক যে রিপোর্ট পেয়েছি তাতে বাঁ পায়ের গোড়ালি ও পায়ের পাতার হাড়ে গুরুতর চোট রয়েছে। রক্ত জমে গেছে। এছাড়া ডান কাঁধ, ডান হাত ও গলায় চোট রয়েছে। তিনি আরও বলেন, ঘটনার পর থেকেই মমতা বুকে ব্যথা এবং শ্বাসকষ্ট অনুভব করছেন। আগামী ২৪ ঘণ্টার জন্য তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, উডবার্ন ওয়ার্ডের ওই সাড়ে ১২ নম্বর কেবিনেই মমতাকে রাখা হয়েছে। তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল টিমের সদস্যরা নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করছেন মমতাকে। বাঙুরে নিয়ে যাওয়ার আগে এসএসকেএম এ এক্স-রে এবং সিটি স্ক্যান করা হয় মমতা। তখন ব্যথার ওষুধও দেয়া হয়েছিল।