আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ বলেছেন, তার দেশে কয়েকটি গোষ্ঠী তৎপর রয়েছে যারা দেশের চলমান অর্থনৈতিক সঙ্কটকে কেন্দ্র করে গৃহযুদ্ধ বাধাতে চায়। কিন্তু হিজবুল্লাহ এই ধরনের অপতৎপরতার সুযোগ কাউকে দেবে না বলে তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। পার্সটুডে।

সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ বলেন, যারা লেবাননের প্রতিরোধের কারণে হতাশ হয়েছে তারা এখন অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব উস্কে দেয়ার চেষ্টা করছে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় রাজধানী বৈরুত থেকে টেলিভিশনের মাধ্যমে দেয়া বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

হিজবুল্লাহ মহাসচিব বলেন, “আমার কাছে তথ্য রয়েছে যে, বাইরের শক্তিগুলো এবং কিছু অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠী লেবাননকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দেয়ার চেষ্টা করছে। তারা আসলে আগুনে ঘি ঢালারই চেষ্টা করছে।”

হিজবুল্লাহর হাতে প্রচুর অস্ত্র রয়েছে এবং তা দিয়ে তারা লেবাননে গৃহযুদ্ধ শুরু করতে চায় বলে কোনো কোনো মহল থেকে যে অভিযোগ তোলা হয়েছে তার জবাবে হাসান নাসরুল্লাহ বলেন, এই ধরনের বক্তব্য একেবারেই অযৌক্তিক ও ভিত্তিহীন। গৃহযুদ্ধের জন্য ছোট ছোট অস্ত্রের প্রয়োজন হয় এবং এমন অস্ত্র লেবাননের সবার হাতেই রয়েছে। তিনি বলেন, হিজবুল্লাহর হাতে থাকা অস্ত্র দিয়ে দেশের ভেতরে গোলযোগ সৃষ্টি করার কোনো উদ্দেশ্য তার সংঠনের নেই। তিনি আরো বলেন, চলমান গোলযোগ সৃষ্টির মূল লক্ষ্য হচ্ছে লেবাননকে গৃহযুদ্ধের ভেতরে ফেলা, কিন্তু এটি হচ্ছে রেড লাইন।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের মহামারি শুরুর পর থেকে লেবানন মারাত্মক রকমের অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়েছে। দেশটির জনগণের অর্ধেকের বেশি এখন দারিদ্রসীমার নিচে বসবাস করছেন। এ নিয়ে দেশটিতে অনেক দিন ধরে বিক্ষোভ চলে আসছে।