ভারতে চলমান মহামারি করোনাভাইরাসের টিকা পাচ্ছেন ষাটোর্ধ্বরা। আর শুধু তারাই পাচ্ছেন যাদের কো-মর্বিডিটি রয়েছে। তবে সেক্ষেত্রেও বয়স ৪৫ হতে হবে। এসব শর্তের মধ্যে আটকে গেছে পশ্চিম বঙ্গের পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের টিকার দ্বিতীয় ডোজ। বিতর্ক উঠেছে ৪৪ বছর বয়সী সৃজিত করোনার টিকা পেলেন কীভাবে? তাই অভিমান জমেছে সৃজিতের মনে। বলেছেন কিছুতেই করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেবেন না তিনি।

বুধবার (২৪ মার্চ) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন তিনি। সেখানেই বাধে বিপত্তি। আসতে শুরু করে প্রশ্নের পর প্রশ্ন। কেউ জানতে চান, ৪৫ বছর বয়সের আগেই তিনি প্রতিষেধক নিলেন কী করে? কেউ আবার জিজ্ঞেস করেন বেসরকারি হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরা পরিচালকের কাছে কোনও নথি দেখতে চাইলেন না কেন!

এসব প্রশ্নের মুখে পড়েই সৃজিত সেই পোস্ট সরিয়ে নেন। বদলে একটি নতুন পোস্ট করেন তিনি। সেখানে জানান, তার এক বন্ধুর কাছ থেকে জানতে পেরেছিলেন, ৪৪ বছর বয়স পেরোলেই টিকা নেওয়া যাবে। কিন্তু টিকা নেওয়ার পরে বুঝতে পেরেছেন যে, তথ্যটি ভুল ছিল। যদিও তার উচ্চরক্তচাপ রয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিচালক।

পোস্টের শেষে অভিমান প্রকাশ করেন সৃজিত। লিখলেন, এক দফা টিকা নিয়ে পরের ডোজ না নিলে যদি সংক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যায়, তবুও আর হাসপাতালমুখী হবেন না তিনি। সৃজিতের প্রতিজ্ঞা, টিকার দ্বিতীয় ডোজটি কিছুতেই নেবেন না তিনি।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা