আগস্ট শেষ হতে এখনও চার দিন বাকি থাকলেও, জুলাইয়ের তুলনায় এ মাসে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে তিনগুণ বেশি রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

গত মাসে (জুলাই) ২৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হলেও বৃহস্পতিবার পর্যন্ত (২৭ আগস্ট) পর্যন্ত ৬৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় বিভিন্ন হাসপাতালে তিনজন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে রাজধানীর হাসপাতালে দুজন ও ঢাকার বাইরে একজন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হন।

বর্তমানে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ১৩ জন ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালে একজন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন।

শুক্রবার (২৮ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুম সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ডেঙ্গুর প্রকোপ ধীরে ধীরে বাড়ছে। ঢাকা সিটি করপোরেশনের (উত্তর ও দক্ষিণ) দুই মেয়র মশক নিধনে আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় অধিক তৎপর। সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা মোতাবেক স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগনিয়ন্ত্রণ বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সমন্বিতভাবে বিভিন্ন ওয়ার্ডের বাসাবাড়িতে মশার উৎপত্তিস্থলে অভিযান পরিচালনা করছেন। এমনকি এডিসের লার্ভা পাওয়ায় বাড়ির মালিকদের জরিমানাও করছেন। তবুও সীমিত সংখ্যক হলেও ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে গতকাল ২৭ আগস্ট পর্যন্ত রাজধানীসহ সারাদেশের হাসপাতালে মোট ৪১৫ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৪০০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, চলতি বছর জানুয়ারিতে ১৯৯ জন, ফেব্রুয়ারিতে ৪৫ জন, মার্চে ২৭ জন, এপ্রিলে ২৫ জন, মে মাসে ১০ জন, জুনে ২০ জন, জুলাইয়ে ২৩ জন ও আগস্টে ৬৬ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।